1. admin@dainik71bangla.com : dainik71bangla.com :
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৯:০৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
আগে জীবন বাচাঁন’ ঘরে বসে নববর্ষ উপভোগ করুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসানের দুর্দান্ত বোলিং কলকাতা নির্বাচন ৭২ ঘন্টা আগে সকল দলের প্রবেশ নিষিদ্ধ করল কমিশন কলকাতায় কাল তৃতীয় দফা ভোট সতর্ক কেন্দ্রীয় সামরিক বাহিনী ভারতের ছত্রিশগড়ে মাওবাদীর হাতে ২২ সেনা নিহত আহত ৩২ কোম্পানীগঞ্জে মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার কমিটি পুনঃগঠন মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও মু্ক্তিযুদ্ধার স্বীকৃতি পাননি মীর আহম্মদ শার্শায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন ৫০ বছরে আমাদের সোনার বাংলা স্বাধীনতায় সমৃদ্ধ আগামীর প্রত্যাশা দিল্লীর কেজরিওয়ালের প্রশাসনিক ক্ষমতা কেড়ে নিলো কেন্দ্রীয় সরকার

পৃথিবীর ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল সুন্দরবন কে বাঁচাতে কলকাতা হাইকোর্টের কড়া নির্দেশ

মনোয়ার ইমাম: ভারত কলকাতা প্রতিনিধি।
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৯ মার্চ, ২০২১
  • ২৯ বার পড়া হয়েছে

মনোয়ার ইমাম ::  ভারত  কলকাতা।  আজ পশ্চিম  বাংলার  কলকাতা  হাইকোর্টের  প্রধান বিচারপতি র ডিভিশন বেঞ্চ এর প্রধান বিচারপতি শ্রী অনিরুদ্ধ রায় জানিয়েছেন যে যে কোন মূল্যে সুন্দর বন এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও পরিবেশ বাঁচাতে অবিলম্বে মানুষ ও জলযান নিয়ে গভীর সুন্দরবনে।

প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে হবে। এবং তা যথারীতি পালন করছে কি না তা দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার বারুইপুর জেলা পুলিশ ও সুন্দর বন জেলা পুলিশ এবং জেলার ডি এম কে রিপোর্ট দিতে হবে পশ্চিম বাংলার বন দপ্তর কে। রাজ্যে র মুখ্য বনপাল শ্রী বিনোদ কুমার যাদব তা মনিটরিং করে কলকাতা।

মহামান্য হাইকোর্ট এর নজরে আনবে।যে কোন পরিস্থিতি তে এবং যে কোন মূল্যে এই সুন্দর বন কে রক্ষা করতে হবে সকলকে।এর ফলে কয়েক লক্ষ মানুষ এর রুটি রুজি রোজগারের টান পড়বে। কারণ সুন্দর বন এলাকার উপর নির্ভর করে পর্যটন শিল্প ও মধু ভাঙতে যাওয়া মানুষ ও গভীর সুন্দরবন

এলাকার মধ্যে নদী ও নালা তে মাছ ধরতে যাওয়া ধীবর দের ভীষণ ভাবে অথনৈতিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে। এবং সুন্দর বন এলাকার নদী ও নালা তে চিংড়ি মাছ ও কাঁকড়া ধরতে যাওয়া মানুষ জন ক্ষতিগ্রস্ত হবে।এই সব মানুষ জন জীবনে ঝুঁকি নিয়ে সুন্দর বন এলাকায় নদীর তীরে মাছ ও চিংড়ি এবং

কাঁকড়া এবং মধু ভাঙতে যায়। কিন্তু সুন্দর বনকে বাঁচাতে সবধরনের ব্যাবস্থা নিতে নির্দেশ দেওয়াতে অসুবিধা পড়েছে এই এলাকার বিভিন্ন যায়গার বাসিন্দারা। পশ্চিম বাংলার সাবেক সুন্দরবন উন্নয়ন দপ্তর মন্তী শ্রী কান্তি গাঙ্গুলি ও বর্তমান সুন্দর বন উন্নয়ন দপ্তর মন্ত্রী শ্রী মন্টু রাম পাকিরা জানিয়েছেন।

হাই কোর্টের নির্দেশ মেনে চলতে হবে। সেই সঙ্গে অসহায় সুন্দর বন এলাকার মানুষের জীবিকার টান না পড়ে সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তবে সুন্দর বন এলাকার পরিবেশ উন্নয়ন ফিরে আনতে বদ্ধপরিকর

সরকার।তারা স্হানীয় প্রশাসন ও মানুষের কাছে অনুরোধ রাখবেন যাতে করে পৃথিবীর এই বিখ্যাত ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল সুন্দরবন বাঁচতে পারে।সবাই কে এগিয়ে আসতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় : INTEL WEB