1. admin@dainik71bangla.com : dainik71bangla.com :
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
স্কটল্যান্ড পার্লামেন্টের সদস্য নির্বাচিত বাংলাদেশী সিলেটের ফয়সল চৌধুরী রাজধানী ঢাকায় ভান্ডারিয়া উপজেলার ড্রীম বাংলা ফাউন্ডেশনের ইফতার মাহফিল আবারো পশ্চিম বাংলার মসনদে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপদ্যায় আল কুরআনের খেদমত সবার ভাগ্যে থাকেনা – শাহ্ মোঃ ছাদিকুর রহমান নন্দীগ্রামে মমতা কে হারিয়ে শুভেন্দু জয়ী নন্দীগ্রামে ১২০১ ভোটে জয়ী মমতা ব্যানার্জি ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ফের মমতা ব্যানার্জি সরকার গঠনে এগিয়ে ভান্ডারিয়ায় ড্রীম বাংলা ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ঈদের সামগ্রী বিতরণ তাকবীরে তাহরীমা ও সালামের লামে মদ্দ করা সংক্রান্ত করোনাক্রান্তে বিশ্ব রেকর্ডে ভারত ৪ লক্ষ ছাড়িয়ে

আবেদন করেও ঘর পাননি ভূমিহীন প্রতিবন্ধী আছিয়া

উমর ফারুক: পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি।
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪৪ বার পড়া হয়েছে

উমর ফারুক :: পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি। শিলা বৃষ্টিতে পলেথিনের ঘর জরাজীর্ণ হওয়ায় বর্তমানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কনকনে শীতে মানবেতর জীবন নিয়ে বসবাস করছে দৃষ্টি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী আছিয়া বেগম।ঘর সংস্কারের আর্থিক সাহায্য ও

নতুন সরকারী পাকা ঘরের জন্য নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে আবেদন করেও মেলেনি কোন ধরণের প্রতিকার উল্টো ঘুড়তে হয়েছে ইউএনও অফিস চত্তরে দিনের পর দিন।পঞ্চগড় তেঁতুলিয়া উপজেলা দেবনগড় ইউনিয়নের সিতাপাড়া এলাকার মৃত

আলাউদ্দিনের মেয়ে দৃষ্টি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী মোছাঃ আছিয়া বেগম (৭০)। ওই ইউনিয়নের ইংডাঙ্গা এলাকার মৃত আমির হোসেন এর সাথে ঘর সংসারে একটি ছেলে সন্তানের মা হলে ছেলে সন্তানের জায়গা হলে আছিয়ার স্বামীর সংসার

ভেঙ্গে যায়। নিজের কোন জায়গা নেই ছোট ভাইয়ের হাফ শতক জমিতে ভাঙ্গা বাঁশের পলেথিনের ঘর শিলা বৃষ্টিতে ভেঙ্গে জরাজীর্ণ অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন অসহায় হতদরিদ্র দৃষ্টি প্রতিবন্ধী আছিয়া।সরজমিনে গিয়ে।

দেখা যায়, ছোট ভাইয়ের হাফ শতাংশ জায়গায় পলেথিন ও বাশেঁর চালা দিয়ে ঘর করে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কনকনে শীতে খেয়ে না খেয়ে দিন কাটছে তার। উপজেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের দেওয়া তিন মাস অন্তর অন্তর প্রতিবন্ধী ভাতা ২১৫০/- দিয়ে

চলে তার সংসার। অশ্রু শিক্ত চোখে প্রতিবন্ধী বৃদ্ধা সাংবাদিককে জানান, আমি ঘরের সংস্কার ও একটি সরকারী ঘরের জন্য দরখাস্ত দেবনগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বরাবরে দিলে তিনি সরেজমিনে তদন্ত করে গত ১৭ সেপ্টেম্বর তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী

কর্মকর্তা বরাবরে ঘর সংস্কার ও সরকারী ঘরের সুপারিশ করেন তিনি। এদিকে গত ৩০ নভেম্বর তেঁতুলিয়া নির্বাহী কর্মকর্তা উপজেলা ডাক ফাইলে লিখিত আবেদন না পড়ে তিনি সমাজ সেবা অধিদপ্তরে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করেন। এরপর

থেকে দৃষ্টি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী আছিয়া বেগম দুই মাস ধরে তেঁতুলিয়া নির্বাহী কর্মকর্তা কার্যালয়ে দিনের পর দিন ঘুরতে থাকেন। গত ২৬ জানুয়ারি মঙ্গলবার আছিয়া বেগম উপজেলা কার্যালয়ের গোল চেয়ারে বসে অপেক্ষা করছেন নির্বাহী কর্মকর্তা কখন আসবেন। উল্লেক্ষ্য করে জিঙ্গাসা

করলে উত্তরে আবেগ আপ্লুত চোখের জলে তিনি জানান, দুই মাস ধরে ঘুরতেছি ইউএনও সাথে দেখা করবো আমার ঘরের চালা নেই পলেথিনের ঘর বসবাস করতে পারি না।এদিকে তার একথা শুনে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহাগ চন্দ্র

সাহা মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি দৈনিক ৭১ বাংলা  কে জানান এধরণের কোন আবেদন পাই নাই আমি আবেদন পেলে সে যদি ভূমিহীন হয় তাহলে তাকে ঘর দেওয়া হবে। এভাবে সংবাদকর্মীকে তিনি বলেন।এসময় উপজেলা ডাক

ফাইলে তলব করলে জানা যায় আবেদনটি সমাজ সেবা অধিদপ্তরে প্রদান করা হয়েছে অধিদপ্তর শারীরিক প্রতিবন্ধী আছিয়া বেগম জন্য ২০০০/- টাকার আর্থিক সাহায্য অনুদান দিয়েছেন। এ বিষয় দেবনগড় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মহসিনউল হক

মোবাইন ফোনে যোগাযোগ করা হয়ে তিনি জানান, সরজমিনে তার ঘরের অবস্থা দেখে সুপারিশ করি আছিয়া বেগম প্রতিবন্ধী সরকারী ঘর তার জন্য নতুন পাকা ঘর পেলেই কিছুটা হলেও ভালো

থাকবেন তিনি। শারীরিক প্রতিবন্ধী আছিয়া বেগম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট একটি সরকারি ঘরের জন্য আকুতি জানান এই প্রতিবন্ধী বৃদ্ধা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় : INTEL WEB